কালসর্প যোগ ও প্রতিকার | Kaal Sarp Yog and Remedies - Astro Luck

Breaking

September 9, 2018

কালসর্প যোগ ও প্রতিকার | Kaal Sarp Yog and Remedies

কালসর্প যোগ কাকে বলে। 
জ্যোতিষ শাস্ত্রে কালসর্প যোগ বা কালসর্প দোষ কাকেবলে ও কিভাবে একটি জন্মকুণ্ডলীতে কালসর্প নামক যোগটি তৈরী হয় তা জন্য। কিন্তু বর্তমানে কালসর্প যোগ নিয়ে কিছু জোতিষী মানুষকে এমন ভাবে ভয় দেখাচ্ছে , মনেহয় কালসর্প যোগ মানে মৃত্যু যোগ। আবার কোনো কোনো জোতিষ বাবাজী বা জোতিষ মহারাজ নিজেরাই শাস্ত্র পাল্টিয়ে ফেলছেন আর এই কালসর্প যোগের পাশাপাশি আংশিক কালসর্প যোগ ও তৈরী করেফেলেছে। আর মানুষকে ভয় দেখিয়ে তাদের থেকে টাকা আত্মসাৎ করছে কালসর্প যোগের নামে। যাই হোক এবারে এসব বাজে বিশ্লেষণ ছেড়ে আসল বিষয়ে আসাযাক। আসলে কালসাপ যোগ পূরণে যে যে পুস্তক গুলি ছিল তাতে এই যোগের কোনো অস্তত্ব নেই কিন্তু পরমুহূর্তে গবেষণার মধ্যে এই যোগটিকে পাওয়া যায় এবং সত্যি এই যোগটির একটি খারাপ দিক আছে তা মেনেনিতে হবে। কিন্তু তা মারক যোগ হিসাবে ধরা যায় না। আবারো বলেরাখি আংশিক কালসর্প যোগ বলে কোনো যোগের অস্তিত্ব জোতিষ শাস্ত্রে নেই। 
জোতিষ শাস্ত্র মতে কালসর্প যোগের বা দোষের মুলে রয়েছে রাহু এবং কেতু। একটি জন্ম কুণ্ডলী দেখে ব্যাপারটি বোঝা যাক। পাশের জন্মকুণ্ডলীতে রাহু মীন রাশিতে ও কেতু কন্যা রাশিতে অবস্থান করছে এবং রাহু ও কেতুর একপাশে সকল গ্রহ অবস্থান করছে , আর বিপরীত দিকে কোনো গ্রহ নেই। এই পরিস্থিতি যখন কোনো জন্ম কুণ্ডলীতে দেখাযায় তখন তাকে আমরা কালসর্প যোগ বা কালসর্প দোষ বলে। কিন্তু যদি রাহু ও কেতুর একদিকে সকল গ্রহ এবং ওই সকল গ্রহের মধ্যে মাত্র একটি গ্রহ বা একটির বেশি গ্রহ  বাইরে থাকলে তখন কালসর্প যোগ ভঙ্গ হয়েছে ধরা হবে।
তাহলে আমরা জানলাম রাহু ও কেতুর একপাশে সকল গ্রহ থাকলে কালসর্প যোগ হচ্ছে , আর রাহু ও কেতুর আরেকপাশে ফাঁকা ঘর গুলির দিকে একটি মাত্র গ্রহ বেরিয়ে আসলে কালসর্প যোগ ভঙ্গ হয়ে যাবে। এবারে জানাযাক জন্ম কুণ্ডলীতে কালসর্প যোগে কোন ভাবে রাহু থাকলে কি ফল দেবে।
১) লগ্নে রাহু ও সপ্তমে কেতু - শারীরিক সমস্যা , খারাপ মানসিকতা , মস্তকে আঘাত , প্রতিষ্ঠা লাভ বাধা, পাতি - পত্নীর মধ্যে বিবাদ , ব্যবসাতে অসফলতা , প্রতিষ্ঠা লাভ বাধা।
২) দ্বিতীয়ে রাহু ও অষ্টমে কেতু - ধনসম্পদ প্রাপ্তিতে বাধা , কথা-বার্তা খারাপ ও কর্কষ হবে , অন্যের আশ্রিত হতেহবে , আয়ু ও কর্মক্ষমতা কম থাকবে , অজানা বাধ্য হতে পারে , পুলিশি ঝামেলায় পড়তে হবে।
৩) তৃতীয়ে রাহু ও নবম কেতু - ভাই বোনেদের সাথে সম্পর্খে খারাপ হবে, যোগাযোগে সমস্যা আসবে, খাদ্য নালিতে সমস্যা , ধৰ্মকে না মানা , উচ্চশিক্ষাতে বাধা।
৪) চাতুর্থে রাহু ও দশমে কেতু - মাতৃসুখ কম হবে ,  নাম যশ পাবে না , নিজস্ব সম্পত্তি থাকবে না , বন্ধুরা শত্রূতা করবে , কর্ম স্থানে বিশেষ সমস্যা , পরীক্ষা ও পতিজগিতায় অসফলতা।
৫) পঞ্চমে রাহু ও একাদশে কেতু - পুত্র সুখ লাভ হয় না , প্রেম প্রীতি নষ্ট করে দেয় , পড়াশোনায় অসফলতা , আয় উন্নতিতে বাধা , জ্যেষ্ঠ ভ্রাতার সাথে সম্পর্খে খারাপ , যানবাহন লাভ হবে না।
৬) ষষ্ঠে রাহু ও দ্বাদশে কেতু -  রোগ প্রতিরোধের শক্তি নাস্তা করে দেয় , চাকরি প্রাপ্তিতে বাধা , শত্রূ বৃদ্ধি পাওয়া , মামলা মোকাদ্দমা ফেসে যাবে , প্রচুর বাজে ব্যয় করবে , দূরে ভ্রমণে গিয়ে সমস্যায়র  সম্মুখীন হতে হবে।
৭) সপ্তমে রাহু ও লগ্নে কেতু - শারীরিক সমস্যা , খারাপ মানসিকতা , মস্তকে আঘাত , প্রতিষ্ঠা লাভ বাধা, পাতি - পত্নীর মধ্যে বিবাদ , ব্যবসাতে অসফলতা , প্রতিষ্ঠা লাভ বাধা।
৮) অষ্টমে রাহু ও দ্বিতীয় কেতু - ধনসম্পদ প্রাপ্তিতে বাধা , কথা-বার্তা খারাপ ও কর্কষ হবে , অন্যের আশ্রিত হতেহবে , আয়ু ও কর্মক্ষমতা কম থাকবে , অজানা বাধ্য হতে পারে , পুলিশি ঝামেলায় পড়তে হবে।
৯) নবমে রাহু ও তৃতীয় কেতু - ভাই বোনেরা শত্রূতা করে , যোগাযোগে সমস্যা আসবে, খাদ্য নালিতে সমস্যা , ধৰ্মকে না মানা , উচ্চশিক্ষাতে বাধা।
১০) দশমে রাহু ও চাতুর্থে কেতু - মাতৃসুখ কম হবে ,  নাম যশ পাবে না , নিজস্ব সম্পত্তি থাকবে না , বন্ধুরা শত্রূতা করবে , কর্ম স্থানে বিশেষ সমস্যা , পরীক্ষা ও পতিজগিতায় অসফলতা।
১১) পুত্র সুখ লাভ হয় না , প্রেম প্রীতি নষ্ট করে দেয় , পড়াশোনায় অসফলতা , আয় উন্নতিতে বাধা , জ্যেষ্ঠ ভ্রাতার সাথে সম্পর্খে খারাপ , যানবাহন লাভ হবে না।
১২) দ্বাদশে রাহু ও ষষ্ঠে কেতু - রোগ প্রতিরোধের শক্তি নাস্তা করে দেয় , চাকরি প্রাপ্তিতে বাধা , শত্রূ বৃদ্ধি পাওয়া , মামলা মোকাদ্দমা ফেসে যাবে , প্রচুর বাজে ব্যয় করবে , দূরে ভ্রমণে গিয়ে সমস্যায়র  সম্মুখীন হতে হবে।

কালসর্প যোগে প্রতিকার। 
কালসর্প যোগ প্রতিকারের জন্যে প্রথমে কোনো ভালো  জোতিষীর পরামর্শ নিন এবং কালসর্প যোগ নিবারণ হেতু পূজাপাঠ করালে কালসর্প যোগ সম্পূর্ণ রূপে কেটে যায়। নিচে কিছু নিয়ম দেয়া হলো যার দ্বারা কালসাপ যোগ নিবারণ করা যায়।
১) প্রতি দিন শিব লিঙ্গমের পূজা করুন এবং সোমবার ও শনিবার নিরামিষ ভোজন করুন।
২) প্রতি মঙ্গল বার হনূমান জীর পূজা করা ভালো , সাথে হনূমান চালিশা পাঠকরলে শুভ ফল পাওয়া যাবে।
৩) মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র জপ্ ও মহামৃত্যুঞ্জয় যন্ত্রম ধারণ করলে শুভ ফল লাভ হবে।
৪) নিজের শোবার ঘরে একটি ময়ূরের পাখনা রাখুন।
৫) কালো মাষকলাই পাখিকে খাওয়াতে হবে এবং পিঁপড়েকে চিনি খাওয়াতেহবে।
৬) কালসর্প যন্ত্রম গলায় ধারণ করলে শুভফল পাওয়া যাবে।
৭)  ২টি নারকেল স্রোতের জলে ভাসিয়ে দিতে হবে।
৮) দারিদ্র লোক-কে  ইচ্ছা আনসার দান করলে শুভ ফল পাওয়া যায়।
৯) গোমেদ ও ক্যাটস আই ধারণ করলে কালসর্প দোষের নিবারণ হয়।


*** কালসর্প দোষ কাটাতে কোনো বিদ্যান জোতিষীর পরামর্শ নিন এবং অসৎ জোতিষী থেকে নিজেকে বাঁচান , আংশিক কালসাপ দোষে কান দেবেন না। যদি ব্লগ ভালো লেগে থাকে শেয়ার করুন আপনাদের বন্ধুদের সাথে।        
 
      

1 comment:

  1. আংশিক কালসর্প দোষে কান দেবেন না বলতে কি বোঝাতে চাইলেন বুঝলাম না !!

    ReplyDelete