জ্যোতিষ শাস্ত্রে রাশি ও তাদের চরিত্র | Astrological Sign and Character - Astro Luck

Breaking

September 9, 2018

জ্যোতিষ শাস্ত্রে রাশি ও তাদের চরিত্র | Astrological Sign and Character

জ্যোতিষ শাস্ত্রে রাশি -  চলুন জ্যোতিষ শাস্ত্রের  ১২ টি রাশি  নিয়ে আলোচনা করা যাক।  ১২ টি রাশি যেমন - ১) মেষ  রাশি , 2) বৃষ রাশি , ৩) মিথুন রাশি , ৪) কর্কট রাশি , ৫) সিংহ রাশি , ৬) কন্যা রাশি , ৭) তুলা রাশি , ৮) বৃশ্চিক রাশি , ৯) ধানু রাশি , ১০) মাকর রাশি , ১১) কুম্ভ রাশি ও ১২) মীন রাশি।

১) মেষ  রাশি -  রাশিচক্রের প্রথম রাশি মেষ রাশি। এই রাশি রাবির তুঙ্গা স্থান ,শনির নীচক্ষেত্র ও মঙ্গলের মূল ত্রিকোণ ও স্বক্ষেত্র।  কালপুরুষের মস্তক। এই রাশির জাতক জাতিকাদের গঠন হয় সুঠাম , দহিক শক্তি প্রবল থাকে চোখ হয় উজ্জ্বল। এরা হয় পরাক্রমী ,উদার ও সাহসী প্রকৃতির। আত্মবিশ্বাসে প্রবল ও কারোকাছে মাথা নত করে

না। এদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মনোভাব প্রবল। কামবস্তু পাবার জন্যে সে দৃঢ় প্রতীজ্ঞ। এরা হয় প্রভুত্ত প্রিয় , যে কাজে সর্দারী নেই সেইরকম কাজ এরা
পছন্দ করে।

এই রাশিটি হলো অগ্নি রাশি। এই রাশির জাতক /  জাতিকাদের মধ্যে রয়েছে প্রকাশ ও সৃষ্টির ক্ষমতা। সংগঠন করার শক্তি এর মধ্যে রয়েছে , নিজেকে কোন সমস্যা থেকে বাঁচানো বা নিজেকে রক্ষা করার শক্তি এদের মধ্যে বিদ্যমান। এই রাশিটি হল চরো রাশি তাই এদের মধ্যে দেখা যাবে গতির। এই রাশির শনি যদি খারাপ হয় তাহলে মন চঞ্চল ,তমগুণ , খারাপ পথের পথিক হয়ে যায় এই জাতক জাতিকারা।

মেষ রাশির জাতক জাতিকারা চুড়ান্ত আশাবাদী ও উচ্চাভিলাষী হয়ে থাকে। হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে এরা। এদের মাথার যন্ত্রনা , উচ্চারণে ত্রূটি ,কোষ্ঠকাঠিন্যের রোগ হতে পারে। হজমের গোলমাল ও যৌন সমস্যাও হতে পারে এই রাশির জাতক জাতিকাদের।

২) বৃষ রাশি - রাশিচক্রের দ্বিতীয় রাশি নিয়ে এবারে আলোচনা করবো। বৃষ রাশি হল রাশিচক্রের দ্বিতীয় রাশি। এই রাশির অধিপতি শুক্র , এর সাথে চন্দ্রের তুঙ্গস্থান ও মূল ত্রিকোণ স্থান। এই রাশির জাতকেরা হয় একনিষ্ঠ ও দৃঢ় মনোভাবযুক্ত। নিজের মত ও পথে এরা সবসময় চলতে পছন্দ করে।  এই জাতক জাতিকারা ধীর ,শান্ত ,আরামপ্রিয়  ও ইন্দ্রিয় ভোগপরায়ণ হয়ে থাকে। কিন্তু এরা একবার রেগেগেলে সহজে শান্ত হতে চায় না রাগ ভয়ঙ্কর রূপ ও নিতে পারে , সহজে রাগ  প্রশমিত হয় না।

এই রাশির অধিপতি শুক্র তাই এই রাশির জাতক জাতিকাদের মধ্যে রয়েছে শুক্রের গুনাগুন। এই রাশির লোকেদের মধ্যে থাকবে বিভিন্ন ধরণের গুন ও উদ্ভাবনী প্রতিভা। এদের মধ্যে রয়েছে শিশুসুলভ মন ও স্নেহ - ময় মমতা ভরা  হৃদয়। বৃষ রাশির জাতকের মধ্যে থাকবে বহু প্রতিভা ও সকল বিষয়ে বুঝে নেবার ক্ষমতা থাকে। বহু লোকেদের চালনা করার ক্ষমতা এদের মধ্যে থাকবে। এরা চাকরিতে যতটা উন্নতি করতে পারে ব্যাবসাতে  ততটা  উন্নতি করতে পারে না। এই  রাশির লোকেদের জী
বনে বহু  বিপরীত লিঙ্গের সাথে  গোপন সম্পর্ক থাকতে পারে। এরা নিজের স্ত্রীর বশীভূত হয়ে থাকে।

এই রাশির জাতক জাতিকারা কাজ করবে বেশি কথা কম বলবে ও সময় নষ্ট করা এরা মোটেও পছন্দ করে না। এরা খুবই আনন্দ প্রিয় হয় ও উচ্চাকাঙ্খা থাকবে প্রবল।  এদের হাতে অর্থ আসলে যত্ন সহকারে এরা সঞ্চয় করতে পারে ও অর্থ প্রাপ্তিতে খুবই সুখী হয়।  কিন্তু যদি জন্ম কুণ্ডলীতে শুক্র দুর্বল হলে এরা বাজে কাজে অর্থ ব্যয় করে ফেলবে, অসৎ মহিলা , বাজে নেশা , অতিরিক্ত ইন্দ্রিয় সুখ নিয়ে গিয়ে নিজের ক্ষতি করে বসবে।

৩) মিথুন রাশি - এই রাশিটি আমাদের জ্যোতিষ শাস্ত্রের তৃতীয় রাশি।  এই রাশি বায়ু রাশি এবং এই রাশির জাতক জাতিকাদের দ্বি-ভাবাপন্ন হয়ে থাকে। এই রাশির অধিপতি বুধ তাই এদের মন হবে চঞ্চল ও শিশুসুলভ।  এই রাশির জাতক জাতিকারা কখনো চঞ্চল কখনো আবার ধীর, কখনো এরা একাগ্র আবার কখনো অন্যমনস্ক , কখনো ভোগী কখনো আবার ত্যাগী।  কখনো পার্থিব বাসনা ভোগের আনন্দ আবার কখনো গুরুগম্ভীর চিন্তায় মগ্ন। তাহলে বোঝা গেলো মিথুন রাশির জাতক জাতিকারা শুভ -অশুভ দুই বিপরীতমুখী দ্বিমুখী ভাব ধারা পরিচালিত হয়।

এই রাশির জাতক জাতিকাদের তীক্ষ্ন বুদ্ধি সম্পন্ন , অনেকে পারদর্শী ও লেখাপড়ায় ভালো হয়ে থাকে। জন্মকুণ্ডলীতে যদি লগ্নে বুধ ও রবি একত্রে থাকলে বা দৃষ্ট থাকলে জাতক জাতিকারা জীবনে নাম করে ও যশ প্রাপ্তি করে। এরা নানা বিষয়ে জ্ঞান লাভ করেথাকে। এই রাশির লোকেরা সামান্যতে সন্তুষ্ট থাকে না। নিজের উদ্দেশ্য সাধনের জন্যে অন্যকে ডিঙ্গিয়ে যাবার চেষ্টা করে। এরা স্নেহপরায়ণ ও স্পর্শকাতর হয়েথাকে , অন্যের খারাপ অবস্থায় নির্দ্বিধায় সাহায্য করতে এগিয়ে আসে।

এই রাশির জাতক জাতিকারা একঘেয়েমিতে হাপিয়ে ওঠে , এরা সবসময় পরিবর্তন পছন্দ করে।  এই রাশির লোকেরা কিছু বিষয় নিয়ে বোঝাতে চায় এছাড়াও যে বুঝতে নাচায় তাকেও বোঝাতে চেষ্টা করে। এরা হাস্যকৌতুক পছন্দ করে এবং সবাইকে হাসতে পছন্দ করে। বুধ অশুভ হলে তোতলামি এবং পিত্তের পীড়া হতে পারে। এদের শরীরচর্চা ( ব্যায়াম ) করা উচিত।  এই রাশির জাতক জাতিকারা হিসাব শাস্ত্রে ,হিসাব রাখাকে , সম্পাদক , কেরানী , উকিল , বিচারক , সাংবাদিক , শিক্ষক ও কোষাধ্যক্ষের কাজ দক্ষ হয়।

৪) কর্কট রাশি -  রাশিচক্রের চতুর্থ রাশি কর্কট রাশি এই রাশিটি নিয়ে এবারে আলোচনা করবো।  এই রাশিটি চর ও জল রাশি। এই রাশির অধিপতি চন্দ্র। এই রাশির জাতক জাতিকারা অত্যন্ত কল্পনাপ্রবণ ও সুচতুর। কাজকর্মের ব্যাপারে এরা পরিবর্তন ও নতুনত্ব পছন্দ করে থাকে। এই রাশির অধিপতি চন্দ্র তাই এই রাশির জাতক জাতিকারা ভাবপ্রবণ হয়ে থাকে তাই  এরা বিচার বুদ্ধির চেয়ে ভাবানেগ দ্বারাই পরিচালিত হয়। জন্ম কুণ্ডলীতে চন্দ্র ক্ষীণ বা দুর্বল হলে সাথে মঙ্গল দুর্বল বা অশুভ গ্রহ দ্বারা দৃশ্য হলে জাতক জাতিকা ভুল পথে চালিত হয়ে থাকে। আবার চন্দ্র ও মঙ্গল শুভ হলে জাতব্যক্তির অসাধারণ সৃজনী প্র্রতিভা যুক্ত হবে এবং এরা খ্যাতি লাভ করবে।

কর্কট রাশির জাতক জাতিকাদেড় সুকেশ যুক্ত হবে এবং লম্বা চওড়া ও সুন্দর সুঠাম আকৃতি যুক্ত হয়। এদের মুখমণ্ডল সুন্দর হয়।  এদের চলাফেরায় একটু মেয়েলি ছন্দ থাকে এবং বিলাসপ্রিয় হয়। এই রাশির জাতক জাতিকারা সাজপোশাকে পরিপাটি ও আরো সুন্দর ভাবে নিজেকে তুলে ধরতে চেষ্টা করে।

এই রাশির লোকেরা বেশী আওয়াজ , আড়ম্বর ও হাঁকডাক পছন্দ করে না।  এরা নিজের কাজ ও চিন্তাধারার মধ্যে সবসময় লেগে থাকে।  কিন্তু চলার পথে বাধাপ্রাপ্ত হলে  উত্তেজিত হয়ে ওঠে এবং বাধাটিকে নিজের বুদ্ধি জোরে অতিক্রম করে। এই রাশির জাতক জাতিকা মনের মিল যার সাথে হবে তার সাথে মিশে থাকতে পারে।

চন্দ্র অশুভ হলে জাতক জাতিকার বুদ্ধিবিভ্রম , কফ -কাসি , টনসিল , পিটার রোগ ও হার্টের রোগ ভুগতে পারে। বাণিজ্যিক বৃত্তি যেমন ক্যাটারারের কাজ , রেষ্টুরেন্ট পরিচালনা , স্টেশনারি দোকান ও মুদিখানার ইত্যাদি কাজ কর্কট রাশির জাতক জা)তিকার পক্ষে উপযুক্ত।

৫) সিংহ রাশি -    রাশিচক্রের পঞ্চম রাশি সিংহ রাশি। এই রাশির অধিপতি রবি।  সিংহ রাশিতে শনির ক্ষমতা নাষ হয় কিন্তু এই রাশিতে আবার বৃহস্পতির মিত্রস্থান।  এই রাশির লোকেদের শারীরিক গঠন হবে সুঠাম কাঁধ ও বুক হবে চওড়া। মুখমণ্ডল হবে গোলাকৃতি ও মাথার চুল সামান্য কোঁকড়ানো। চোখ দুটি হবে উজ্জ্বল ও তীক্ষ্ন।


সিংহ রাশির লোকেদের মধ্যে থাকবে তেজ ও ভোগ বিলাসে থাকার ইচ্ছা। এই রাশির লোকেদের মধ্যে থাকবে আত্মবিশ্বাস ও আত্মাভিমান। সব সময় এরা চাইবে নাম-যশ পেতে এবং এদের মধ্যে থাকবে উচ্চাভিলাষ। জাকজমক ও রাজকীয় আচার আচরণ করতে চাইবে। সমালোচনা করা, সংগঠন করা এদের মধ্যে আছে। সিংহ রাশির লোকেদের মধ্যে আছে উচ্চমানষিকতা ও আন্তরিকতা , আত্মীয় ও বন্ধু বাড়িতে আসলে সকলকে আদোর-আপ্পায়ন করে থাকে। পরের উপকারে এই রাশির লোকেরা এগিয়ে আসে। এই রাশির লোকেরা শত্রূকে জয় করতে পারে।

এই রাশির লোকেরা সবসময় আনন্ধ উপভোগ করতে পছন্দ করে। কিন্তু যদি এই রাশিরই অশুভ হয় বা অশুভ গ্রহ দ্বারা যুক্ত হয় তাহলে এরা হবে  আরামপ্রিয় , দাম্ভিক ও অহংকারী। অলসতা দেখা দেবে।দৈহিক শক্তি প্রয়োগ করবে এরা। কিন্তু শুভ হলে উচ্চ মানসিকতা , পরাক্রমী , বিক্রমী , শ্রেষ্টত্ব লাভ করে এরা।  এই রাশির লোকেরা শব্দ করবে ভীষণ ও হাসিও খুবই জোরে আওয়াজ কররবে। এরা নিজেকে সৃষ্ট প্রমান করতে চাইবে সবসময়।
  
৬) কন্যা রাশি - রাশিচক্রে ষষ্ঠ রাশি কন্যা রাশি। এই রাশির অধিপতি বুধ। বুধ গ্রহটি কন্যা রাশি ও মিথুন রাশি দুইটি ঘরের অধিপতি তারমধ্যে কন্যা রাশি হলো বুধের সেক্ষেত্রে ও পাশাপাশি মূল ত্রিকোণ সাথে উচ্চ স্থান। এই রাশিতে শুক্র নীচস্থ হয়ে থাকে। এই রাশির জাতক বা জাতিকারা অর্থের থেকেও জ্ঞানকে প্রধান দিয়েথাকে কারণ বুধ বিদ্যার কারক। আর শুক্র গ্রহটি ধন-অর্থ তথা জাগতিক ভোগসম্পদের কারক।

কন্যা রাশির জাতক বা জাতিকারা সরু দেহ , কৃষ্ণ বর্ণের কেশ যুক্ত ও সুন্দর কেশ যুক্ত হয়েথাকে। এরা একস্থানে বেশিদিন থাকে না। এই রাশির জাতক বা জাতিকাদের বাসগৃহ ও কর্মে ঘন ঘন পরিবর্তন হয়েথাকে। যেকোনো পরিবেশের সাথে ও যেকোনো পরিস্থিতিতে এরা নিজেদের খাপ খাইয়ে নিতে পারে। এই রাশির লোকেরা হয় যেকোনো কর্মে সুনিপুন। এরা হবে সুবুদ্ধি সম্পর্ণ , ব্যবস্যা বাণিজ্যে ব্যাপারে আঘাত অভিজ্ঞতা থাকবে। এরা বিলাসিতা পছন্দকরে। এরা হবে রসিক প্রকৃতির লোক। এদের সংগীতের দিকে ঢোক থাকবে। বাড়িতে আত্মীয় ও বন্ধু আসলে নিজে তাদের আদর আপ্যায়ন করেথাকে। এই রাশির জাতক বা জাতিকারা হবে বালকের মতো সরল।

জোতিষ শাস্ত্রে কন্যা রাশির প্রতীক একটি কুমারী মেয়ে। কুমারী মেয়ে মানে হলো নারী শক্তি যাকে কামনা করা যায়। আবার কুমারী অর্থে বিশুদ্ধ , সতী বা সৎ , কৌমার্য , বন্ধু ভাবাপন্ন ইত্যাদি ভাব যা কন্যা রাশির কারকতায় রয়েছে। এই রাশির লোকেরা সহজে বিচলিত হয়েপড়ে কিন্তু পাশাপাশি এদের মধ্যে ব্যক্তি সচেতনতা লক্ষ্য করা যায়। এই রাশির জাতক বা জাতিকাদের নানা বিষয়ে পান্ডিত্য থাকবে। এরা অঙ্ক শাস্ত্রে পারদর্শী হয়েথাকে পাশাপাশি পদার্থ বিদ্যায়ও পারদর্শিতা অর্জন করেথাকে। এই রাশির জাতক বা জাতিকারা পদার্থ বিদ্যায় যশ লাভ করেথাকে। কন্যারাশির জাতকেরা বা জাতিকারা আইনবিদ , অধ্যাপক , শিক্ষক ও ফার্মাসিষ্ট হতেপারে। এরা প্রকাশক সম্পাদক এবং সাংবাদিক হিসাবে নাম করে। এদের জীবনে চাকরি ও ব্যবস্যা ২টি হয়েথাকে। কন্যা রাশির ওপর অশুভ গ্রহের প্রভাব থাকলে এরা বার বার দুর্ঘটনার কবলে পড়তে পারে ও দেহে অস্ত্রপ্রচার হয়েথাকে।

) তুলা রাশি -      















No comments:

Post a Comment